আজঃ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৭ | ১২:১১ pm

হিটলারের ‘সোনা বোঝাই ট্রেন’এর দেখা কি সত্যিই মিলবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক

August 18, 2016 at 12:53 pm, Last Update: August 18, 2016 at 6:54 am

hitlar trainসোনাদানা, মণিমাণিক্য, গুপ্তধনের লোভে আবার নাজিদের রেখে যাওয়া সোনার ট্রেন খোঁজা শুরু হল পোল্যান্ডে। রটনা, রুশ সেনাদের কাছ থেকে লুকিয়ে রাখার জন্য জার্মানির বহু গুপ্তধন নাজিরা ওই ট্রেনে রেখে দিয়েছিল। আর তা যাতে আগুয়ান রুশ বাহিনীর নজরে না পড়ে যায়, সে জন্য আস্ত ট্রেনটাকে রেখে দিয়েছিল মাটির তলায়।

গুপ্তধন সন্ধানীদের বিশ্বাস, দক্ষিণ-পশ্চিম পোল্যান্ডের ওয়ালব্রিজখেই মাটির তলায় আস্ত ওই সোনার ট্রেনটাকে পুঁতে রেখেছিল নাজিরা। গত বছর এক পোলিশ ও এক জার্মান প্রত্নতাত্ত্বিক দাবি করেন, তাঁরা ওই এলাকায় মাটি খুঁড়ে ওই সোনার ট্রেনের কয়েকটা কামরার হদিশ পেয়েছিলেন। প্রায় ২৬ থেকে ২৮ ফুট গভীরতায়। ওই কামরাগুলি রাখা ছিল প্রায় সাড়ে ৩০০ ফুট জায়গা জুড়ে। তাঁরা গ্রাউন্ড পেনিট্রেটিং রাডার দিয়ে সোনার ট্রেনের ওই কামরাগুলির হদিশ পেয়েছিলেন। তবে গবেষকরা বলেছিলেন, তাঁদের অনুমান ওই ট্রেনে হরেক রকমের যুদ্ধাস্ত্রের অবিকল প্রতিরূপ রেখে দিয়ে গিয়েছিল নাজিরা।

তবু ‘খ্যাপা খুঁজে ফেরে পরশপাথর’!  গুপ্তধন সন্ধানীদের জোর বিশ্বাস, রুশ সেনাবাহিনী একেবারে ঘাড়ের ওপর এসে গিয়েছে বুঝতে পেরে প্রচুর সোনাদানা, মূল্যবান রত্ন, মণি-মাণিক্য, গুপ্তধন নাজিরা ওই সোনার ট্রেনে রেখে তা মাটির তলায় পুঁতে দিয়ে এলাকা ছেড়েছিল। ক্র্যাকাওয়ের এজিএইচ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা কিন্তু গত ডিসেম্বরে ওই এলাকায় অনুসন্ধান চালিয়ে তেমন কিছুর সন্ধান পায়নি। তবে সেখানে কোনও সুড়ঙ্গ থাকলেও থাকতে পারে।

এর পরেও অবশ্য বিশ্বাস একটুও টাল খায়নি গুপ্তধন সন্ধানীদের। তাঁদের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘‘সুড়ঙ্গের হদিশ মিললেও সেটা আমাদের একটা বড় সাফল্য হবে।ওই সুড়ঙ্গেই হয়তো রয়েছে সেই সোনার ট্রেনটি। আমরা খড়ের গাদায় কোনও ছুঁচ খুঁজছি না। আর ৪/৫ দিনের মধ্যেই গোটা বিষয়টা স্পষ্ট হয়ে যাবে। আমরা ১০০ মিটার এলাকা জুড়ে প্রায় ২০ ফুট পর্যন্ত মাটি খুঁড়ব।’’

টুইটারে ফলো করুনঃ